বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ থেকে কিছু নতুন খেলোয়াড় পাওয়া গেছে : বিসিবি সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন এমপি

0
107
বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ থেকে কিছু নতুন খেলোয়াড় পাওয়া গেছে : বিসিবি সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন এমপি

গৃহকোণ রিপোর্ট \ বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ থেকে কিছু নতুন খেলোয়াড় পাওয়া গেছে বলে জানালেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্র্ডের (বিসিবি) সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন এমপি। তিনি বলেন, ‘ইতিবাচক বিষয় হল, দক্ষতা দেখানোর জন্য খেলোয়াড়দের একটি প্লাটফর্ম দিয়েছে টুর্নামেন্টটি এবং কিছু খেলোয়াড় খুবই ভালোভাবে তা কাজে লাগিয়েছে। তাই আমরা কিছু নতুন খেলোয়াড় পেয়েছি। যাদের প্রতিভা আছে এবং যা ভবিষ্যতে আরো ভাল করতে পারবে।’ যদিও কোভিড-১৯ এর মধ্যে ইতোমধ্যেই বেশ কিছু দেশে ক্রিকেটে ফিরেছে, তবে বাংলাদেশে ক্রিকেট প্রত্যাবর্তন অনিশ্চিত ছিল। গত সেপ্টেম্বরে শেষ মূর্হুতে শ্রীলংকা সিরিজটি স্থগিত হয়। তারপরে ক্রিকেটারদের নিয়ে তিনটি দলে ভাগ করে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের আয়োজন করার সিদ্বান্ত নেয় বিসিবি। বিসিবি সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন এমপি’র মতে, পরিকল্পনাটি দুর্দান্ত সাফল্য পেয়েছে। এই টুর্নামেন্টের মধ্যে দিয়ে ছয় মাস পর ক্রিকেটে ফিরতে সক্ষম হয় ক্রিকেটাররা। এরপর তিন দলের টুর্নামেন্টটি অনেক বেশি প্রতিযোগিতামূলক হয়েছে। বেশ কয়েকজন তরুণ ক্রিকেটার এই টুর্নামেন্টের মধ্য দিয়ে নজরে এসেছে। তরুণ শরিফুল ইসলাম ও সুমন খান পেস বিভাগে দারুন পারফর্ম করেছে। তৌহিদ হৃদয় এবং ইরফান শুক্কুরের মতো তরুণরা ব্যাটিং নৈপুন্যের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন। গত রোববার ফাইনাল শেষে বিসিবি সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন এমপি বলেন, ‘এই টুর্নামেন্টের সাথে জড়িত থাকা পুরো ম্যানেজমেন্টকে আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটি খুব সুন্দরভাবে শেষ হয়েছে। অবশ্যই আমরা নিয়মিত খেলোয়াড়দের কাছ থেকে রান আশা করেছিলাম, কিন্তু তারা পারেনি। যাইহোক, মুশফিক ভালো করেছে। শেষ ম্যাচে লিটন রান করেছে।’ বিসিবি সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন এমপি আরও বলেন, ‘ইতিবাচক দিক নতুন বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় ভাল করেছে। তাসকিন ফিরে এসেছে, আমি ভেবেছিলাম তাসকিন হয়তো জাতীয় দলে আর ফিরতে পারবে না। সে খুবই ভালো করেছে। রুবেলের জন্য দারুন একটি টুর্নামেন্ট ছিলো। শুধু তাই নয় আমরা সুমন খানের মতো বোলার পেয়েছি।’ তিনি আরও যোগ করে বলেন, ‘ব্যাটিংএ ইরফান শুক্কুর ধারাবাহিকভাবে রান করেছে। প্রতিটি ম্যাচেই চাপের মধ্যে ব্যাট করতে এসে পারফর্ম করেছে সে। আরেক ছেলে, তৌহিদ হৃদয় তার প্রতিভা প্রদর্শন করেছে। এখন আমি তাকে চিনি। অলরাউন্ডার মাহাদি হাসানের ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। সে ব্যাট ও বল হাতে ভালো করতে পারে। পেস বোলিংএ আমাদের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা ছিলো। এই প্রথম কোনও টুর্নামেন্ট আমি দেখলাম, যেখানে পেসাররা খুবই ভাল করছে।’

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন