হাসপাতালের বাইরে অসুস্থ ট্রাম্পের মোটর শোভাযাত্রা

0
82
হাসপাতালের বাইরে অসুস্থ ট্রাম্পের মোটর শোভাযাত্রা

আপডেট »০৬≈ অক্টোবর ≈ ২০২০
গৃহকোণ আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ করোনাভাইরাস আক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ওয়ালটার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিকেল সেন্টারের বাইরে মোটর শোভাযাত্রা করেছেন। রোববার পূর্বপ্রস্তুতি ছাড়াই অসুস্থ প্রেসিডেন্টের এ মোটর শোভাযাত্রার মুখোমুখি হয়ে হাসপাতালের বাইরে জড়ো হওয়া তার সমর্থকরা বিস্মিত হয়ে যান। মোটর শোভাযাত্রা শেষে প্রেসিডেন্ট আবার হাসপাতালে ফিরে যান। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসির ওই হাসপাতালের সামনে একটি কালো রঙের এসইউভির পেছনের আসনে বসা মুখে মাস্ক পরা ৭৪ বছর বয়সী ট্রাম্প সমর্থকদের উদ্দেশ্যে হাত নাড়েন। এ সময় তার গাড়িবহর ধীরে ধীরে এগিয়ে যায় আর ‘ট্রাম্প ২০২০’ পতাকা হাতে জড়ো হওয়া সমর্থকরা ‘ইউএসএ! ইউএসএ!’ বলে শ্লোগান দেয়। কিছু সময়ের জন্য হাসপাতাল থেকে বের হওয়া আগে টুইটারে পোস্ট করা এক ভিডিওতে ট্রাম্প বলেন, তাকে শুভকামনা জানাতে যারা হাসপাতালের বাইরে জড়ো হয়েছেন তাদের ‘সারপ্রাইজ’ দিতে চান তিনি। শুক্রবার হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর এটি জনসম্মুখে ট্রাম্পের প্রথম উপস্থিতি ছিল। সংক্রামক রোগে আক্রান্ত প্রেসিডেন্টের এই শোভাযাত্রা তাৎক্ষণিকভাবে সমালোচনার মুখে পড়েছে। তার দেহরক্ষীদের ও গাড়ি চালকের স্বাস্থ্যকে ঝুঁকির মুখে ফেলার জন্য অনেকেই তার সমালোচনা করেছেন। এর কয়েক ঘণ্টা আগে কোভিড-১৯ আক্রান্ত প্রেসিডেন্টের চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসকরা তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে পরস্পরবিরোধী ইঙ্গিত দেন। অক্সিজেন নেওয়ার পর প্রেসিডেন্টের ফুসফুসের অবস্থা তারা পর্যবেক্ষণ করছেন, এমনটি জানানো সত্তে¡ও তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে বলে দাবি করেছেন চিকিৎসকরা। সোমবারের মধ্যেই ট্রাম্পকে হোয়াইট হাউসে ফেরত পাঠানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন তারা।কিন্তু ট্রাম্পের চিকিৎসক ডা. শন পি. কনলি জানিয়েছেন, তিনি আগে যা বলেছিলেন প্রেসিডেন্টের অবস্থা তার চেয়েও খারাপ হয়ে পড়েছিল। শুক্রবার সকালে ট্রাম্পের প্রবল জ¦র ছিল আর পরে তার রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা নেমে গিয়েছিল বলে জানিয়েছেন তিনি। পরীক্ষায় ট্রাম্পের ফুসফুসের অবস্থা সম্পর্কে কী জানা গেছে, এমন প্রশ্নে কনলি বলেন, “যা পাওয়া গেছে তা প্রত্যাশিতই ছিল, তবে সেগুলো বড় কোনো উদ্বেগের বিষয় না।” জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আমেশ আদালজা বলেছেন, কনলির উত্তর থেকে ধারণা করছি এক্স-রে প্রতিবেদনে নিউমোনিয়ার কিছু লক্ষণ পাওয়া গেছে। “প্রত্যাশিতভাবে যা পাওয়া গেছে তা হল, এক্স-রে প্রতিবেদনে নিউমোনিয়া থাকার প্রমাণ এসেছে। যদি এটা স্বাভাবিক হয় তাহলে তাদের শুধু বলা উচিত, এটা স্বাভাবিক।” ট্রাম্পের চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত নন, এমন অন্য চিকিৎসকরা বলছেন, তার রোগ গুরুতর এমন প্রমাণ আছে। ট্রাম্পকে ডেক্সামেথাসোন দেওয়া হয়েছে, এই স্টেরয়েড গুরুতর কোভিড রোগীর ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা হয়। এর পাশাপাশি তাকে এন্টিভাইরাল ওষুধ রেমডিসিভির ও রিজেনেরন ফার্মাসিউটিক্যালসের পরীক্ষামূলক এন্টিবডি চিকিৎসাও দেওয়া হয়েছে। “১৪ দিনের আগে তার পক্ষে বাইরে বের হয়ে আসা ও প্রচারণা চালানো অসম্ভব হওয়ার কথা,” বলেছেন নিউ ইয়র্ক নর্থওয়েল হেলথের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. ডেভিড বাটেনেলি। ট্রাম্প জানিয়েছেন, হাসপাতালে তিনি সৈন্য ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তার এ বক্তব্যে প্রশ্ন উঠেছে তিনি এখন রোগটি সরাসরি অন্যান্যের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছেন কি না। সমালোচকরা বলেছেন, রোববার বিকালে ট্রাম্পের মোটর শোভাযাত্রার সময় তার বুলেট প্রæফ এসইউভিতে তার সঙ্গে থাকা সিক্রেট সার্ভিসের সদস্যদের এখন ১৪ দিন স্বেচ্ছা কোয়ারেন্টিনে থাকা দরকার। “এই দায়িত্বহীনতা স্তম্ভিত হওয়ার মতো,” এক টুইটে বলেছে ওয়ালটার রিড হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. জেমস ফিলিপস। ট্রাম্পের মোটর শোভাযাত্রার আগে সাংবাদিকদের তা না জানানোয় আপত্তি জানিয়েছে হোয়াইট হাউস কোরেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জাড ডিয়ার জানিয়েছেন, চিকিৎসকদের সম্মতি নিয়ে যথাযথ পূর্বসতর্কতা মেনেই মোটর শোভাযাত্রাটি করা হয়েছে। এদিকে ট্রাম্পের ডেমোক্র্যাটিক প্রতিদ্ব›দ্বী জো বাইডেনের আবার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ফল নেগেটিভ এসেছে বলে রোববার তার প্রচারণা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। এর আগে শুক্রবার আরও দুইবার বাইডেনের পরীক্ষা কর হয়েছিল, দুইবারই ফল নেগেটিভ এসেছিল। গত মঙ্গলবার রিপাবলিকান প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে একটি মুখোমুখি নির্বাচনী বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন বাইডেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন