আল হাদিস

0
108
আল হাদিস

৬০ নং পরিচ্ছেদ
সর্বাপেক্ষা কম মর্যাদাসম্পন্ন জান্নাতীর অবস্থান
১১৮। আনাস (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেন, আল্লাহ তা‘আলা কিয়ামতের দিন সকল মানুষকে সমবেত করবেন। তখন তারা বলবে, আমরা যদি আমাদের প্রভুর নিকট সুপারিশ করার জন্যে কোন সুপারিশকারীর অনুসন্ধান করতাম, যার সুপারিশে আমরা আমাদের এই মহাসংকট থেকে রক্ষা পেতাম! এরপর তারা আদম (আ)-এর নিকট এসে তাঁকে বলবে, আপনিতো সেই লোক, যাকে আল্লাহ পাক নিজ হাতে বানিয়েছেন এবং আপনার দেহের মধ্যে তাঁর রূহ ফুঁকে দিয়েছেন। তাঁর নির্দেশে ফেরেশতারা আপনাকে সিজদা করেছেন। তাই আমাদের এই বিপদ থেকে উদ্ধারের জন্যে আমাদের প্রভুর নিকট সুপারিশ করুন। তিনি বলবেন, আমি এর উপযুক্ত নই। তিনি তাঁর গোনাহের কথা উল্লেখ করে নূহ (আ)-এর নিকট যাওয়ার জন্য বলবেন, যাকে আল্লাহ দুনিয়াতে প্রথম রাসূল হিসেবে পাঠিয়েছিলেন। তখন তারা নূহ (আ)-এর কাছে আসবে। তিনিও বলবেন, এ ব্যাপারে আমি যোগ্য নই। তিনি তার অপরাধের কথা স্মরণ করে বলবেন, তোমরা ইবরাহীম (আ)-এর নিকট যাও, যাকে আল্লাহ বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন। তখন তারা তাঁর নিকট এলে তিনিও বলবেন, এ ব্যাপারে আমি উপযুক্ত নই। তিনিও তার ক্রটি-বিচ্যুতির কথা উল্লেখ করে বলবেন, তোমরা মূসা (আ)-এর নিকট যাও। যাঁর সাথে আল্লাহ তা‘আলা সরাসরি কথাবার্তা বলতেন। তখন তারা তাঁর নিকট এলে তিনি বলবেন, আমি এ বিষয়ে উপযুক্ত নই। তিনিও তার ভুল-ভ্রান্তির কথা স্মরণ করে বলবেন, তোমরা ঈসা (আ)-এর নিকট যাও। তারা তাঁর নিকট আসবে। তিনিও বলবেন, এ বিষয়ে আমি উপযুক্ত নই। তোমরা মুহম্মদ (সা)-এর নিকট যাও। আল্লাহ তাঁর পূর্বের ও পরের সকল গোনাহ মাফ করে দিয়েছেন। তখন তারা আমার নিকট আসবে। আমি তখন সুপারিশ করার জন্য আমার প্রভুর নিকট অনুমতি চাইবো। আমি যখন তাঁর দেখা পাবো, তখন আমি সিজদায় অবনত হবো। তিনি যতক্ষণ পর্যন্ত ইচ্ছা করেন, ততক্ষণ পর্যন্ত আমাকে সিজদাবনত অবস্থায় রাখবেন। এরপর আমাকে বলা হবে, তোমার মাথা উঠাও এবং চাও, তোমার চাহিদা প‚রণ করা হবে। এবং কথা বলো, তোমার কথা শুনা হবে, তুমি সুপারিশ করো, তোমার সুপারিশ গ্রহণ করা হবে। তখন আমি সিজদা থেকে মাথা তুলব। অতঃপর আমি আমার প্রভুর প্রসংশা করবো, যে প্রসংশা তিনি আমাকে শিখিয়েছেন। এরপর আমি সুপারিশ করবো। অতঃপর তিনি আমার জন্য সুপারিশের একটা সীমা নির্দিষ্ট করে দেবেন। তারপর আমি তাদের জাহান্নাম থেকে বের করে জান্নাতে প্রবেশ করাবো। এরপর ফিরে এসে আমি পূর্বের মতো সিজদাবনত হবো। এভাবে তৃতীয়বার। বর্ণনাকারী বলেন, অথবা তিনি বলেছেন, চতুর্থবার। শেষ পর্যন্ত কুরআন যাদের আটকে রেখেছে, তারা ছাড়া আর কেউ দোযখে অবশিষ্ট থাকবে না। (বুখারী-কিতাবুর রিযক)

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন