আল হাদিস

0
69
আল হাদিস


১২ নং পরিচ্ছেদ
ইমাম আসতে দেরি হলে সালাত শুরু করা প্রসঙ্গে
২৪৩। সাহ্ল ইবনে সা‘আদ আস-সায়িদী (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) একবার বনি আমর ইবনে আওফ গোত্রে তাদের মধ্যকার একটি বিষয় মীমাংসা করতে গিয়েছিলেন। ইতিমধ্যে সালাতের সময় হয়ে গেল। তখন মুয়াযিন আবু বকরের নিকট এসে বললো, আপনি কি লোকদের নিয়ে সালাত আদায় করবেন? আমি তাহলে ইকামাত দিই তিনি বললেন, হ্যাঁ। আবুবকর সালাত আদায় করা শুরু করলেন। এমতাবস্থায় রাসূলুল্লাহ (সা) এসে গেলেন। লোকজন তখন সালাত আদায় করছিলেন তিনি কাতার ভেদ করে প্রথম কাতরে গিয়ে দাঁড়ালেন, এতে লোকেরা হাততালি দিতে শুরু করলেন। আবু বকর সালাত আদায় করার সময় এদিক-সেদিকে তাকাতেন না। কিন্তু লোকেরা যখন বেশি মাত্রায় হাততালি দেয়া শুরু করলো, তখন তিনি পাশে তাকালেন এবং রাসূলুল্লাহ (সা)-কে দেখতে পেলেন। তখন রাসূলুল্লাহ (সা) ইশারায় তাকে নিজ জায়গায় অবস্থান করার জন্য নির্দেশ দিলেন। রাসূলুল্লাহ (সা)-এর এই নির্দেশ পেয়ে তিনি দু’হাত উপরে তুলে এই নির্দেশের জন্য আল্লাহর প্রশংসা করলেন এবং এরপর পিছনে সরে এসে কাতারের মধ্যে শামিল হয়ে গেলেন এবং রাসূলুল্লাহ (সা) সামনে এগিয়ে গেলেন এবং সালাত শেষ করলেন। সালাত আদায় শেষ হলে তিনি ফিরে আবুবকরকে বললেন: হে আবুবকর! আমি যখন তোমাকে নিজ জায়গায় স্থির থাকতে নির্দেশ দিলাম, তা মানতে তোমার অসুবিধা কি ছিল? আবু বকর (রা) বললেন, আবু কুহাফার পুত্রের জন্য এটা মোটেই শোভনীয় নয় যে, রাসূলুল্লাহ (সা)-এর উপস্থিতিতে সে সালাতে ইমামতি করবে। এরপর রাসূলুল্লাহ (সা) বললেন, এমন কি কারণ ছিল যে, তোমরা সবাই এত বেশি বেশি তালি বাজাচ্ছিলে? সালাতে কারো কোন কিছু ঘটলে বা সন্দেহ হলে সে “সুবহান্নাল্লাহ” বলবে। কেননা, যখন সে “সুবহান্নাল্লাহ” বলবে, তখন তার দিকে খেয়াল করা হবে। হাত মেরে তালি বাজাবে শুধু মেয়েরা।
(বুখারী-কিতাবুল আযান)

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন